অভীক ভট্টাচার্য

মধু ও-মাদল

 

কোথা থেকে আসে, এই পথ

 

হাওয়া বয়

ট্র্যাক্টরের রথচক্রে বেজে ওঠে সবুজ বিপ্লব

 

অনেক দূরের থেকে আমাদের শিল্পলেখমালা

দেখে চোখে চোখে হাসে একটি দু’টি মহানিম গাছ

 

যখনই এ-পথে গেছি

বৈশাখের ধুলো এসে ছুঁয়ে দিয়ে গেছে

 

এখন দুপুর, তুমি হেঁটে যাচ্ছ স্টেশনের দিকে

 

রূপায়ণহীন তুমি

একা কোথা যাবে, আম্রপালী

 

তোমার নির্জন থেকে উঠে এসে

এই গাছ, সমাহিত, দাঁড়িয়ে রয়েছে

 

আমরা যাই

বিকেল ও বিকেলের পরবর্তী ঋতু পার হয়ে

 

রাত্রি হলে গাছেরা কোথায় যায়

এই প্রশ্নে কেঁপে ওঠে

আদিগন্ত স্তব্ধ রাঢ়দেশ

 

নাগরদোলার আলো ঘুরে যায় গাঢ় অন্ধকারে

আকাশের নিচু দিয়ে ভেসে আসে একমাত্র জল

 

একমাত্র মেঘখানি ভেসে আসে

যা আমারই, অথবা সংঘের

কৌম যাপনের ফল

 

মেঘে মেঘে মধু ও মাদল

 

আসে পাতারাও

যেন আমারই হাতের মুদ্রা গাছে গাছে প্রার্থনার মতো

 

কেউ কিছু লিখে রাখে?

 

আমরা যাই

শুধু এই পথরেখা স্পর্শ করে যায় পদতল

দূরে দূরে আলো জ্বলে জামবনির, অনিশ্চয়তার

 

এ পথ মেলায় গেছে?

 

একটি লণ্ঠন যায় অন্ধকার পার হয়ে

পার হয়ে হয়ে

পার হয়ে

 

এই রাত্রি প্রতীক্ষার, এই দেশ অনন্তপ্রশ্নের

 

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*