বর্ণালী কোলের কবিতা

পাঁচটি কবিতা

 

কবরে লেখা ইশতাহার

মনে রেখো, আমি জ্বলতে জ্বলতে ছুটেছিলাম
দাউদাউ আগুন, আমার ঝলসানো শরীর
পোড়া গন্ধ
তবু বলেছিলাম, ”১০০ ডায়াল করো, ১০০..”

আমাকে হঠাৎ ছুঁয়ে ফেলা
পুরুষ-নারী
তোমাদের স্তব্ধতার সামনে
আমাকে না দেখা পুরুষ-নারী
তোমাদের নিরাপদ জীবনের সামনে

জ্বলছি আমি
জ্বলছে একটা সমবেত হাহাকার
“ভারতবর্ষ চাই
ধর্ষণমুক্ত, পীড়নমুক্ত, শোষণমুক্ত
ভারতবর্ষ..”

 

প্রাত্যহিক

কাল সকালে আবার আসবে জল্লাদ
ওদের হাতে শববহন করা খাট
আমাকে তুলে নিয়ে যাবে নির্দিষ্ট জায়গায়
নেমে পড়বে অবশ পা
দিনভর কঙ্কালের নাচ
দিনভর কঙ্কালের হাসি

অফিসটাইম শেষ
আবার জল্লাদ
লাল চোখ, লাঠি

 

রসায়ন

ছুটি হয়েছে
তখনও ল্যাবের সামনে একটি ছোট্ট টুলে রাখা
লম্বা কাচের পাত্র
ভিতরে কোনও রাসায়নিক পদার্থ নেই
শূন্যতা আছে..
আমাদের হৃদয়ের শূন্যতা

 

খনন

বাবার ঘরে টিউলাইটের নীচে চড়ুই
এই ঘুমাল
আমি তখনও খুঁড়ে চলেছি নিজেকে

যদি জলাশয় পাই

 

চাতক

মাসে তোমার সঙ্গে একবার দেখা হয়
এই প্রতীক্ষাটুকু নিয়ে
বেঁচে থাকি বাকি কটা দিন

যেমন বাঁচে মেঘের দিকে চেয়ে কৃষক
যেমন বাঁচে কবিতার জন্য কবি

About চার নম্বর প্ল্যাটফর্ম 2220 Articles
ইন্টারনেটের নতুন কাগজ

Be the first to comment

আপনার মতামত...