অবন্তিকা পালের কবিতা

শরাবি লিবিডো


রাত রাত রাত বিশুদ্ধ রাত হে পয়দায়েশি শরাবি তুমি ওষ্ঠে অঙ্গুরি ছোঁয়ালে দেখতে পাবে একগুচ্ছ মায়াবী ডানা তাতে ভর দিয়ে ভেসে যাচ্ছে ছায়াপথ ভাসতে ভাসতে হোঁচট খাচ্ছে আর এগিয়ে দিচ্ছে সেলফোন যেখানে ওর নম্বরগুলো স্টোর করা নেই অথচ মুখস্থ ছিল না কিছুমাত্র মুমু তুমি কথা বলো ব’লে মহুয়ায় ঢোঁক দিচ্ছে পুরুষবন্ধু পায়ের পাতায় ঢুলে পড়ছে কৃষ্ণাঙ্গ সুন্দরী আর ওদের সদ্য যুবক পুত্রসন্তান কাঁধে ভর দিয়ে বলছে আরেকটা গান প্লিজ জাস্ট একটা

পায়ল কি ঝনকার বৈরনিয়া কৈসে যায়ুঁ মোরি আলি পিয়া সে মিলন কো

গিগোলোরা কবি হলে স্লিপিং পিলের প্রয়োজন ফুরিয়ে আসে। ওভারডোজ ব্যতিরেকে মরে যাওয়া যায় লক্ষবার।



অহোরাত্র দূরে থাকো, কেন এ ছলনা তব প্রিয়?
আমারও তো ইচ্ছে করে, সে খবর কদাচিৎ নিও।

এত দেখি রঙ্গ জানো, বিভঙ্গের এত যে চাতুরী,
পুনরপি প্রশ্ন করো, পিরিতের কী এত মাধুরী?

মধ্যরাতে ডাক দিলে বাজিও মধুর ডোরবেল
কৃষ্ণাঙ্গ যুবক তায় শিশ্নটুকু বাসনা উদ্বেল –

আজ যে কামনা দেবে কাল সেই শরীর আলাদা,
অপাঙ্গে দেখেছে শ্যাম, বাঁশিতে ডেকেছে তার রাধা।

বাড়িতে এসেছে যারা, ফিরে গিয়ে পাঠিয়েছে চিঠি
অমোঘ হৃদির টান, তাহে মেশে অ্যান্টিকুয়িটি।

যথার্থ মূল্য দিলে প্রাণ পাবে শালগ্রাম শিলা,
শিলার জওয়ানি হেন রাধিকার বহুপ্রেমলীলা –

সে খেলা সাঙ্গ হলে অষ্টোত্তর শতনাম তোলো
শ্রীরাধা কর্পোরেট, একশো আট প্রেমিক গিগোলো।

About চার নম্বর প্ল্যাটফর্ম 2090 Articles
ইন্টারনেটের নতুন কাগজ

Be the first to comment

আপনার মতামত...