ছবি কথা

স্বাতী রায়

 

ভিউফাইন্ডারে চোখ রাখার পর দুনিয়াটা প্রায়ই বদলে যায়। সেখানের পৃথিবী আমার কাছে বড়ই সুন্দর, স্বপ্নিল, কখনও বা মায়াবী। সেই মায়া ছবি হয়ে আসার পরে প্রায়শই মাথার মধ্যে গুনগুনিয়ে যায় কিছু লাইন, খুব চেনা লাইন। নতুন করে ছবির বর্ননা আর দিতে লাগে না, আমার আগেই তা কারও না কারও বলা হয়ে গেছে। ছবি তোলার পরেইহঠাৎ করে মাথায় আসে, আরে আমার ছবির তো কিছু বক্তব্য আছে। এই যেমন এদের। থাকুক কিছু সাজানো পর পর…

অনেক পথিক ভালোবাসে শুধু পথ ভুলে যাওয়া
চকিত পাদপশ্রেণী দেখে ভাবে দীর্ঘ ভগবান
হঠাৎ কখন সন্ধেবেলায়
নামহারা ফুল গন্ধ এলায়,
প্রভাতবেলায় হেলাভরে করে
অরুণ মেঘেরে তুচ্ছ
উদ্ধত যত শাখার শিখরে
রডোড্রেনডন গুচ্ছ।
বৃষ্টি পড়ে এখানে বারোমাস
এখানে মেঘ গাভীর মতো চরে
পৃথিবী আবৃত করে শুয়ে থাকে সেই গর্হিত বালক
খোঁজে এ ক্লীবের দেহে, অভ্যন্তরে, মহান শূন্যতা
হইয়া আমি দেশান্তরী
দেশ-বিদেশে ভিড়াই তরী রে
নোঙর ফেলি ঘাটে ঘাটে।
বন্দরে বন্দরে।
আমার মনের নোঙর পইড়া আছে হায়রে
সারেঙ বাড়ির ঘরে।
এক ঝাঁক বুনো হাঁস পথ হারাল
হেইল্যা দুইল্যা, ঢেউ ডিঙাইয়া
পার কইর‍্যা দে
মাঝি পার কইর‍্যা দে
অন্তহীন গগনতল মাথার পরে অচঞ্চল,
ফেনিল ওই সুনীল জল নাচিছে সারা বেলা।
উঠিছে তটে কী কোলাহল ছেলেরা করে মেলা।
জগৎপারাবারের তীরে ছেলেরা করে খেলা
ক্রমাগত ক্ষুররেখা বালুর জগৎ মুছে দেয়
আপন মুখের প্রান্তে শান্ত চরণের ছায়া থাকে
জমছে কালো মেঘ, অন্ধকার ঘনায়,
তাই দেখে মাঝি আকাশে তাকায়।
ক্রুদ্ধ ঝড়ে উঠবে নড়ে স্তব্ধ প্রকৃতি

হুইলার্স স্টল । দ্বিতীয় বর্ষ, দশম মেল ট্রেন

  • Hindutwa or Hind Swaraj
About চার নম্বর প্ল্যাটফর্ম 1097 Articles
ইন্টারনেটের নতুন কাগজ

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*